শিক্ষাক্ষেত্রে ধারণা গঠনের প্রয়োজনীয়তা বা উপযোগিতা লেখো

শিক্ষাক্ষেত্রে ধারণা গঠনের প্রয়োজনীয়তা বা উপযোগিতা লেখো

উত্তর : 

শিক্ষাক্ষেত্রে ধারণা গঠনের প্রয়ােজনীয়তা : 

শিক্ষার্থীর বৌদ্ধিক বিকাশ ও সমস্যা সমাধানের ক্ষেত্রে ধারণা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। জ্ঞানের উৎকর্ষ নির্ভর করে সঠিক ধারণা গঠনের ওপর। ধারণার ভিত্তিতে কোনাে বিষয় চিন্তা করলে চিন্তন ক্রিয়া তুলনামূলকভাবে সহজ হয় এবং মানসিক পরিশ্রমও কিছুটা লাঘব হয়। নীচে বিভিন্ন দিক থেকে শিক্ষাক্ষেত্রে ধারণা গঠনের প্রয়ােজনীয়তা বা উপযােগিতা আলােচনা করা হল— 

[1] শিখনের ভিত্তিস্থাপন : শিক্ষাক্ষেত্রে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল শিখন। শিখন-এর জন্যই শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন ধরনের শিক্ষাক্ষেত্রে হাজির হয়। শিখন শুরুর সময় শিক্ষার্থীর শিক্ষণীয় বিষয় সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা রয়েছে কিনা বা থাকলে তা কোন পর্যায়ে রয়েছে বা বিষয় সম্পর্কে কোনাে ভুল ধারণা রয়েছে কিনা তা জানার দরকার হয়। শিক্ষাক্ষেত্রে তাই শিক্ষার্থীর পুর্বজ্ঞান সম্পর্কে খোঁজ নিয়েই নতুন পাঠ শুরু করা হয়। অর্থাৎ প্রাথমিক ধারণা বিচার করে নতুন শিখনকে উপস্থাপন করা হয়। 

[2] শিখন পরিস্থিতির জটিলতা হাস : ধারণা শিখন পরিবেশের বা পরিস্থিতির জটিলতা হ্রাস করে। শিখনের সময় শিক্ষার্থীকে যদি প্রতিটি উদ্দীপকের সাথে পৃথকভাবে প্রতিক্রিয়া করতে হয়, তাহলে তার স্বাভাবিক জীবন জটিলতায় ভরে উঠবে। কারণ উদ্দীপকের সংখ্যা এত বেশি যে তাদের প্রত্যেকটিকে পৃথকভাবে মনে রাখা বেশ কষ্টকর। এক্ষেত্রে ধারণা সব ধরনের উদ্দীপকগুলিকে কয়েকটি বিভাগে অন্তর্ভুক্ত করে ব্যক্তির বা শিক্ষার্থীর শিখন প্রচেষ্টাকে সহজ করে দেয়। 

[3] শ্রম লাঘবে সহায়তা : ধারণাপ্রসুত অভিজ্ঞতা শিক্ষার্থীর শিখন কাজের শ্রম লাঘব করে। যে-কোনাে নতুন অভিজ্ঞতা অর্জনের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থী পুরােনাে অভিজ্ঞতা বা ধারণাকে কাজে লাগায়। ফলে তুলনামূলক কম পরিশ্রমে অধিক বিষয় শিখতে পারে। 

[4] বিস্তৃতির মাধ্যমে শিখন : শিক্ষার্থীরা কেবল পঠনপাঠন নয়, প্রাত্যহিক জীবনের বিভিন্ন ঘটনা থেকেও ধারণা গঠন করে। কিন্তু জীবনের ঘটনা থেকে অভিজ্ঞতা অর্জনের ক্ষেত্রে অনেক সময় কিছু ফাক থেকে যায়। তাই শিক্ষণের (Teaching) ক্ষেত্রে প্রথমেই শিক্ষার্থীর মনে ধারণার বিস্তৃতি ঘটানাে দরকার। 

[5] সমস্যা সমাধানের ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়তা : ধারণা শিক্ষার্থীর সমস্যা সমাধানমূলক শিখনের ক্ষেত্রে বিশেষভাবে সাহায্য করে। বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে ধারণা থাকলে শিক্ষার্থী শিক্ষাক্ষেত্রে প্রয়ােজনমতাে এক পরিস্থিতি থেকে অন্য পরিস্থিতিতে সহজে তার ওই বিষয়ের প্রতি ধারণা স্থানান্তরিত করতে পারে। ফলে সমস্যা সমাধানের কাজটি সহজ হয়। 

[6] অর্জিত অভিজ্ঞতার পুনর্ব্যবহারে সহায়তা : বিশিষ্ট মনােবিদ ব্রুনার এবং অস্টিন ধারণা এই উপযােগিতার দিকটি সম্পর্কে আলােকপাত করেন। তাঁদের মতে, ধারণা কেবলমাত্র ব্যক্তির বর্তমান জ্ঞান ও তথ্যের শ্রেণিবিভাজনের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত তা নয়। বরং আগামী দিনে ব্যক্তি যেসকল জ্ঞান লাভ করার জন্য অগ্রসর হবে, তার ক্ষেত্রে ধারণা সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে। অর্জিত অভিজ্ঞতার পুনর্ব্যবহারের দ্বারা জ্ঞানার্জন সহজ হবে। 

[7] স্মৃতিতে তথ্য সংরক্ষণের ক্ষেত্রে সহায়তা : অবিন্যস্ত এলােমেলাে তথ্য ও ঘটনাকে স্মৃতিতে দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করতে হলে, যথােপযুক্ত ধারণার অধীনে তাদের শ্রেণিভুক্ত করা দরকার। শুধু তাই নয় পরবর্তীকালে প্রয়ােজনমতাে তাদের ব্যবহার করতে হলে, সেগুলিকে সংরক্ষিত করাও দরকার। 

[8] ভাষার বিকাশে সহায়তা : শিক্ষার্থীর ধারণা গঠনের ক্ষেত্রে ভাষার ব্যবহারের প্রয়ােজন হয়। ধারণা গঠনের শেষ পর্যায়ে বস্তু , বিষয় বা ঘটনার নামকরণ করা হয়। সেক্ষেত্রে ভাষাগত দক্ষতার দরকার হয়। তাই বলা যায় ধারণা শিক্ষার্থীর ভাষাগত বিকাশে সহায়তা করে।

Note: এই আর্টিকেলের ব্যাপারে তোমার মতামত জানাতে নীচে দেওয়া কমেন্ট বক্সে গিয়ে কমেন্ট করতে পারো। ধন্যবাদ।

Leave a Comment

error: Content is protected !!