বাংলা গদ্য সাহিত্যে প্রমথ চৌধুরীর অবদান আলোচনা করো

বাংলা গদ্য সাহিত্যে প্রমথ চৌধুরীর অবদান আলোচনা করো

উত্তর :

বাংলা গদ্য সাহিত্যে প্রমথ চৌধুরীর অবদান

বিংশ শতাব্দীর স্মরণীয় কবি প্রাবন্ধিক, গল্পকার, সাহিত্য সমালােচক ছিলেন প্রমথ চৌধুরী। বাংলা গদ্য সাহিত্যে স্বচ্ছন্দ পদচারণা করেছেন। বীরবল ছদ্মনামে সবুজপত্র পত্রিকা সম্পাদনের মধ্য দিয়ে বাংলা গদ্যে নবধারার সৃষ্টি করেন।

প্রবন্ধ গ্রন্থ :

  • ‘তেল নুন লকড়ি’-১৯০৬
  • ‘বীরবলের হালখাতা ‘-১৯১৬ 
  • ‘ নানা কথা ‘-১৯১৯ 
  • ‘রায়তের কথা’- ১৯১৯ 
  • ‘ আমাদের শিক্ষা’ ১৯২০ 
  • ‘ নানা চর্চা’-১৯৩২ 
  • ‘ প্রবন্ধ সংগ্রহ- প্রথম খণ্ড-১৯৫২, দ্বিত

গল্পগ্রন্থ :

  • ‘ চার- ইয়ারী কথা-১৯১৬ 
  • ‘ আহুতি’- ১৯১৯ 
  • ‘ নীললােহিত ‘- ১৯৪১

কাব্যগ্রন্থ :

  • ‘ সনেট পঞ্চাশৎ ‘-১৯১৩ 
  • ‘ পদচারণ’- ১৯১৯

গুরুত্বপূর্ণ তথ্য :

  • প্রমথ চৌধুরী জন্মগ্রহণ করেন ১৮৬৮ খ্রী: ৭ই আগষ্ট অবিভক্ত ভারতের যশােরে।
  • দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরের দ্বিতীয় পুত্র সত্যেন্দ্রনাথ ও। জ্ঞানদানন্দিনী দেবীর কন্যা ইন্দরা দেবীর সঙ্গে প্রমথ চৌধুরীর বিয়ে হয়। সেই হিসেবে রবীন্দ্রনাথের ভাইঝি জামাই ছিলেন।
  • বাংলা গদ্যে চলিত রীতির প্রবর্তন করেন।
  • প্রমথ চৌধুরীর ছদ্মনাম বীরবল।
  • সবুজপত্র পত্রিকা সম্পাদনা করেন।
  • রবীন্দ্রনাথের পৃষ্ঠপােষকতায় ১৯১৪ খ্রী: ৬ই মে বাংলা ১৩২১ বঙ্গাব্দে ২৫ শে বৈশাখ রবীন্দ্রনাথের জন্মদিনে প্রথম সবুজপত্র পত্রিকা আত্মপ্রকাশ করে।
  • বীরবল ছদ্মনামে তিনি বাংলা গদ্যে তীব্র ব্যঙ্গ বিদ্রুপ রীতির গদ্য রচনা করেন।
  • প্রমথ চৌধুরীর কয়েকটি কাব্যধর্মী প্রবন্ধ ‘বর্ষা’, ‘ফাগুন’, ‘বর্ষাদিনে’।
  • আত্মজীবনীমূলক প্রবন্ধের নাম আত্মকথা।
  • কাব্য সমালােচনামূলক প্রবন্ধ ‘জয়দেব’, ‘চিত্রাঙ্গদা ও ‘ভরতচন্দ্র।’
  • প্রমথ চৌধুরীর গদ্যরীতি বীরবল রীতি নামে পরিচিত।
  • বীরবলের হালখাতায় ফরাসি গদ্যরীতির সাদৃশ্য আছে।
  • রায়তদের কথা রচনায় অর্থনীতি বিষয় নিয়ে লেখা।
  • রবীন্দ্রনাথের নৃত্যনাট্য ‘চিত্রাঙ্গদা’ কে কে, টমসন সাহেবের দুর্নীতি মূলক কাব্য ও নারী জাতির প্রতি ঘৃণ্য মনােভাবের। বিরুদ্ধে প্রমথ চৌধুরী ‘চিত্রাঙ্গদা’ রচনা করেন।
  • প্রমথ চৌধুরী বীরবল ছদ্মনামে ভারতী পত্রিকায় ১৯০২ খ্রী: লেখা শুরু করেন।
  • ইংরেজদের অধীনে বাঙালি জাতির অন্ধ অনুকরণ থেকে মুক্তির জন্য’ তেল নুন লকড়ি’ রচনা করেন।
  • নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায় তাঁর সাহিত্য ও সাহিত্যিক’ গ্রন্তে প্রমথ চৌধুরী সম্পর্কে বলেছেন”—
    ”সব্যসাচী প্রমথ চৌধুরী, ‘সবুজপত্র’ তাঁর গাণ্ডীব।”
  • ১৯৪৬ খ্রী: ২রা সেপ্টেম্বর কলকাতায় মারা যান।

Note: এই আর্টিকেলের ব্যাপারে তোমার মতামত জানাতে নীচে দেওয়া কমেন্ট বক্সে গিয়ে কমেন্ট করতে পারো। ধন্যবাদ।

Leave a Comment

error: Content is protected !!