“দেশের লােক ভারি নিশ্চিন্ত হল।”—কীভাবে দেশের লােক ভারী নিশ্চিন্ত হল?

“দেশের লােক ভারি নিশ্চিন্ত হল।”—কীভাবে দেশের লােক ভারী নিশ্চিন্ত হল? Mark 5 | Class 11

উত্তর:- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘কর্তার ভূত’ রচনার বুড়াে কর্তা ছিলেন দেশবাসীর অভিভাবকস্বরূপ। তিনি মারা যাওয়ার সময় দেশবাসী তাকে জানাল যে, তিনি চলে গেলে তাদের অবস্থা ভীষণ সঙ্গিন হয়ে উঠবে। এ কথা শুনে মৃত্যুপথযাত্রী বৃদ্ধ দুঃখ পেলেন। তিনি চলে যাওয়ার পরও দেশসুদ্ধ লােক কীভাবে নিশ্চিন্ত থাকবে—তাই নিয়ে তিনি খুবই চিন্তিত হলেন। কিন্তু মৃত্যুকে তাে কেউই এড়িয়ে যেতে পারে না। তাই সমাধান হিসেবে ভগবান জানালেন যে, চিন্তার কিছু নেই, মৃত্যুর পর বুড়াে কর্তা ভূত হয়ে দেশবাসীর ঘাড়ে চেপে থাকবেন চিরকাল। কারণ, মানুষের মৃত্যু হলেও ভূতের যে মরণ নেই। এভাবেই বুড়াে কর্তার মৃত্যুর পর তাঁর ভূতের অভিভাবকত্বে থাকার নিশ্চয়তা পেয়ে দেশের লােক ভারি নিশ্চিন্ত হল। আসলে যে মানুষ মনের দিক থেকে দুর্বল, তারা কোনাে-না-কোনাে একটা অবলম্বন চায়। অভিভাবকহীন জীবন তাদেরকে অস্থির করে তােলে। অথচ তারা শান্তিতে বাস করতে চায়। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ব্রিটিশ শাসনে। ভারতবাসীর মেরুদণ্ডহীন অবস্থাকে স্পষ্ট করতে চেয়েছেন তার এই বক্তব্যের মাধ্যমে।

Note: এই আর্টিকেলের ব্যাপারে তোমার মতামত জানাতে নীচে দেওয়া কমেন্ট বক্সে গিয়ে কমেন্ট করতে পারো। ধন্যবাদ।

Leave a Comment

error: Content is protected !!